মদ খাইয়ে ধর্ষণের পর আটকে রাখা হয় ডাফিকে

প্রকাশ: ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০     আপডেট: ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

তুলে নিয়ে গিয়ে জোর করে মদ খাইয়ে ধর্ষণের পর আটকে রাখা হয়েছিল গ্র্যামিজয়ী সংগীতশিল্পী ডাফিকে।

বুধবার প্রায় ১০ বছর আগের ওই ঘটনার কথা তিনি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে জানিয়েছেন বলে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার হওয়ার পর হঠাতই আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তার ছেড়ে লোকচক্ষুর আড়লে চলে যান ইংরেজি গানের তারকা ডাফি; এবার ফিরলেন তিনি।

৩৩ হাজার ফলোয়ার থাকা ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে ৩৫ বছর বয়সী ডাফি বলেন, দয়া করে আমার ওপর বিশ্বাস রাখুন। আমি এখন নিরাপদ ও ঠিক আছি। এটাই সত্য। তিনি লিখেছেন, তুলে নিয়ে মদ খাইয়ে আমাকে ধর্ষণ করা হয়েছিল। এরপর কয়েকদিন আটকে রাখা হয়।

ওয়েলস তারকা ডাফির প্রথম অ্যালবাম ‘রকফেরি’ মুক্তি পায় ২০০৮ সালে। তুমুল আলোড়ন ফেলে অ্যালবামটি ৫১তম গ্র্যামির আসরে জিতে নেয় সেরা পপ অ্যালবামের পুরস্কার।

দীর্ঘদিন যুক্তরাজ্যে টপ চার্টের এক নম্বরে ছিল এই অ্যালবাম। এক বছরেই ইংল্যান্ডে ১৬ লাখ ৮০ হাজার ও বিশ্বে ৭০ লাখ কপি বিক্রির রেকর্ড করে এটি। পায় ৭টি প্লাটিনাম।

তার জীবনের দুর্বিষহ দিনের কথা স্মরণ করে ২০০৯ সালে তিনটি ব্রিট পুরস্কার জেতা ডাফি বলেন, এসব কথা লিখতে আমি কতবার যে ভেবেছি তা কেবল কল্পনাযোগ্য। এটাই সঠিক সময় কিনা নিশ্চিত নই।

তিনি বলেন, আমি ব্যাখা করতে পারব না। অনেকে বিস্মিত হবেন; আমার সঙ্গে কী ঘটেছিল! আমি কেনই বা উধাও হয়ে গিয়েছিলাম। ডাফি বলেন, এক সাংবাদিক আমাকে খুঁজে বের করেন। আমি তার কাছে সব ঘটনা খুলে বলি। তাকে বলার পর আমি স্বস্তি পেয়েছি।

তিনি বলেন, আপনার হয়তো ভাবছেন, আমি কেন এসব নিয়ে মৌখিকভাবে কিছু বলছি না। আমার চোখের বিষণ্ণতা বিশ্বকে দেখাতে চাইনি। নিজেকেই জিগ্যেস করেছি; হৃদয় ভেঙে গেলে গান করব কী করে?

ডাফি বলেন, এরপর আস্তে আস্তে ঠিক হয়েছে সব। কিছুদিন পর আমি একটি ভিডিও সাক্ষাৎকারে সব জানাব। সেখানে কারও কিছু জানার থাকলে আমি জানানোর চেষ্টা করব।