১৯৬৫ সালে আলাউদ্দিন আল আজাদের রচনা ও মোহাম্মদ জাকারিয়ার পরিচালনায় 'ত্রিধারা'র মধ্য দিয়ে অভিনয় শুরু করি। সেই হিসেবে ৫৭ বছর ধরে অভিনয় করছি। এখনও অধরাই রয়ে গেছে স্বপ্নের চরিত্র। এখনও স্বপ্ন দেখি, এমন এক চরিত্রে অভিনয় যেন করতে পারি, যা সবার মনে দাগ কাটবে। কবে সেই চরিত্রের দেখা পাব, কে জানে। পরিচালকরাও হয়তো আমাকে নিয়ে ভাবেননি, তা না হলে এত দিনে তো হয়েই যেত। তবে আশা ছাড়িনি।


কিছুদিন আগে নায়ক জসীম স্যারের অনেক আগের একটি টেলিভিশন সাক্ষাৎকার দেখছিলাম। সেখানে তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, সিনেমা নিয়ে হতাশ কিনা? উত্তরে তিনি বলেছিলেন, 'উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে নেপাল, শ্রীলঙ্কা বা দেশের সিনেমা হলিউড কিংবা বলিউডের সঙ্গে তুলনা করা যাবে না।' জসীম স্যারদের শেষের দিকের সময়েও সিনেমার অবস্থা যে খুব ভালো ছিল, তা নয়। তাই আমি এখনকার পরিস্থিতি নিয়ে হতাশ নই।

লন্ডনে আগে কখনও যাইনি। এত দূরে গিয়ে সম্পূর্ণ অপরিচিত একটি টিমের সঙ্গে কাজ করতে হবে- একা একা অনেক দিন থাকতে হবে, কতটুকু ভালোভাবে কাজ করতে পারব, তা নিয়ে চিন্তায় ছিলাম। তাছাড়া লন্ডনের আবহাওয়া প্রায়ই খারাপ থাকে, এ ভাবনাও ছিল। সব মিলিয়ে কিছুটা নার্ভাস ছিলাম। কিন্তু যাওয়ার পর ধারণাই পাল্টে গেছে। এত সুন্দর একটি টিমের সঙ্গে কাজ করতে পেরেছি, যা আমি কখনও ভুলব না।