চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) কাউন্সিলর নুরুল আমিনের ছেলে নওশাদুল আমিনের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সরোয়ার জাহানের আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। স্ত্রী রেহনুমা ফেরদৌসের মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁকে রিমান্ডে নেওয়া হয়।

চট্টগ্রাম মহানগর কোর্ট পুলিশের জিআরও সালাহউদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, আদালতে পুলিশ তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেছিল।

এর আগে গত শনিবার সকালে চসিকের ১২ নম্বর সরাইপাড়া ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুরুল আমিনের বাসা থেকে তাঁর পুত্রবধূ রেহনুমা ফেরদৌসের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নুরুল আমিনের পরিবার এটিকে আত্মহত্যা বলে দাবি করলেও রেহনুমার পরিবারের দাবি, এটি হত্যাকাণ্ড।

রেহনুমার পরিবারের দাবি, বিয়ের পর থেকে যৌতুকের দাবিতে স্বামী ও শাশুড়ি রেহনুমাকে নিয়মিত নির্যাতন করতেন।

এ নিয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের এক শীর্ষ নেতা পারিবারিক এবং সামাজিক বৈঠক করে সমস্যা সমাধানের চেষ্টাও করেছেন। রেহনুমার লাশ পাওয়ার পর তাঁর স্বামী ও শাশুড়িকে আসামি করে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা করেন রেহনুমার বাবা তারেক ইমতিয়াজ।

এই মামলায় শনিবারই রেহনুমার স্বামী ব্যাংকার নওশাদুল আমিনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ মামলায় কাউন্সিলর নুরুল আমিনের স্ত্রী পপি বেগম পলাতক।