ঘোর অন্ধকারে মাঝ সমুদ্রে চলছে একটি ট্রলার। যাতে কয়েকজন যুবক কেবল। সেই  ট্রলারে হুট করে উঠে পড়ে এক নারী। যে নারীকে উদ্দেশ্য করে অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী আতঙ্ক নিয়ে জানতে চান ‘এ্যাই কোন বোট থেকে আইছো, সত্য করে কও...কথা কচ্ছ না ক্যান?’

ওই নারী আসলে কে? দুই মিনিট ২৫ সেকেন্ডের রহস্যঘেরা ট্রেইলারে সে প্রশ্নের উত্তর মেলেনি। তবে বাস্তবে সেই নারী নাজিফা তুষি। তিনি কীভাবে এলেন ট্রলারে; তাকে ঘিরে রহস্য বাড়িয়েছেন চিত্রনায়ক শরিফুল রাজ, সুমন আনোয়ার, সোহেল মণ্ডলরা।

মঙ্গলবার প্রকাশিত হয়েছে 'হাওয়া' ছবিটির ট্রেলার। যে ট্রেলার সিনেমাটি নিয়ে রহস্য উত্তেজনার ছড়িয়েছে দর্শক হৃদয়ে। গভীর সমুদ্রে চিত্রায়িত ছবিটি। নির্মাণ করেছেন মেজবাউর রহমান সুমন । এর আগে ছবিটির পোস্টার প্রকাশিত হয়। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এলো ছবিটির অফিসিয়াল ট্রেলার। পোস্টারের মতো ট্রেলারও মন কাড়ল। 

মাঝসমুদ্রে গন্তব্যহীন একটি ফিশিং ট্রলারে আটকে পড়া আটজন মাঝি মাল্লা এবং এক রহস্যময় বেদেনীকে ঘিরে চলচ্চিত্রটির কাহিনী আবর্তিত হয়েছে। মিস্ট্রি ড্রামা ঘরানার, ‘হাওয়া’ চলচ্চিত্রটি মূলত একালের রূপকথা বলেই দাবি পরিচালকের।  তার মতে রূপকথা নির্ভর চলচ্চিত্রের প্রচলিত এই ফর্মটি সিনেমার পর্দায় নতুন আঙ্গিকে দেখতে পাবেন দর্শকেরা।

মেজবাউর রহমান সুমনের কাহিনী এবং সংলাপে চলচ্চিত্রটির চিত্রনাট্য লিখেছেন সুকর্ন সাহেদ ধীমান, জাহিন ফারুক আমিন ও পরিচালক নিজেই।

এতে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, নাজিফা তুষি, শরীফুল ইসলাম রাজ, সুমন আনোয়ার, নাসির উদ্দিন খান, সোহেল মণ্ডল, রিজভী রিজু, মাহমুদ হাসান এবং বাবলু বোস।

চলচ্চিত্রটির চিত্রগ্রহণ করেছেন কামরুল হাসান খসরু ও সঙ্গীতায়োজন করেছেন ইমন চৌধুরী। চলচ্চিত্রটির প্রযোজনা সংস্থা সান মিউজিক অ্যান্ড মোশন পিকচার্স লিমিটেড এবং নির্মাণ সংস্থা ফেইসকার্ড প্রোডাকশন। অচিরেই চলচ্চিত্রটির মুক্তির তারিখ ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছে প্রযোজনা সংস্থা। 

তবে প্রযোজনা সংস্থার সূত্রে জানা গেছে, ইতোমধ্যে চলচ্চিত্রটি দেশ এবং দেশের বাইরের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেয়ার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।