আলোচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির কর্মকাণ্ডে সহযোগিতার অভিযোগে গ্রাহকের করা মামলায় জামিন পেয়েছেন গায়ক ও অভিনেতা তাহসান খান। অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ইভ্যালির এক গ্রাহকের করা এ মামলায় আগাম জামিন চেয়ে বুধবার হাইকোর্টে আবেদন করেন তাহসান। বৃহস্পতিবার তাকে জামিন দেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মো. আতোয়ার রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ তাকে জামিন দেন। তাহসান খান বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী। 


ইভ্যালির হয়ে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে সাদ স্যাম রহমান নামে প্রতিষ্ঠানটির এক গ্রাহক গত ৪ ডিসেম্বর মামলা করেন। মামলায় ইভ্যালির এমডি মোহাম্মদ রাসেল, চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন, তাহসান খান, রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ও শবনম ফারিয়াসহ নয়জনকে আসামি করা হয়।

মামলায় ইভ্যালির এমডি রাসেল ও চেয়ারম্যান শামীমাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। বাকিদের বিষয়ে তদন্ত চলছে। গত ১৩ ডিসেম্বর এ মামলার দুই আসামি অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ও শবনম ফারিয়াকে ৮ সপ্তাহের আগাম জামিন দেন হাইকোর্ট।


মামলার বাদী সাদ স্যাম রহমান তার অভিযোগে উল্লেখ করেন, প্রতারণামূলকভাবে গ্রাহকদের টাকা আত্মসাৎ ও এতে সহায়তা করা হয়েছে। আত্মসাৎ টাকার পরিমাণ তিন লাখ ১৮ হাজার। যা তিনি এখনও উদ্ধার করতে পারেননি।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, তাহসান, মিথিলা ও শবনম ফারিয়া ইভ্যালির বিভিন্ন দায়িত্বে ছিলেন। তাদের উপস্থিতি এবং তাদের বিভিন্ন প্রমোশনাল কথাবার্তার কারণে আস্থা রেখে বিনিয়োগ করেন সাদ স্যাম রহমান। এসব তারকার কারণে মামলার বাদী প্রতারিত হয়েছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

জানা যায়, ইভ্যালির শুভেচ্ছাদূত ছিলেন তাহসান। আর মিথিলা ছিলেন ইভ্যালির ফেস অব ইভ্যালি লাইফস্টাইলের শুভেচ্ছাদূত। এছাড়া শবনম ফারিয়া প্রধান জনসংযোগ কর্মকর্তা ছিলেন।