বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউতকে নিয়ে বিতর্ক নতুন নয়! তবে এবার পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে 'বিতর্কিত' টুইট করে আইনি সমস্যায় পড়ছেন তিনি।

এ রাজ্যে বিজেপি ভোটে হেরে যাওয়ার পর কঙ্গনা একের পর এক টুইট করেন। সেখানে তিনি উস্কানিমূলক মন্তব্য করেছেন বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয়. বাঙালিকে অপমান করেছেন বলেও অভিযোগ করা হচ্ছে।। এর জেরেই কঙ্গনার নামে মামলা দিয়েছেন হাইকোর্টের আইনজীবী সুমিত চৌধুরী।

তিনি ই-মেইলে কঙ্গনার বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন বলে জানিয়েছ হিন্দুস্তান টাইমস। 

সুমিত চৌধুরীর অভিযোগ, কঙ্গনা পশ্চিমবঙ্গের আইনশৃঙ্খলা নষ্ট করতে চাইছেন। ২ মে কঙ্গনা যে তিনটি টুইট করেছেন তা পশ্চিমবঙ্গ ও পশ্চিমবঙ্গবাসীর অপমান।

লিখিতভাবে তিনি কলকাতা পুলিশকে বলেন, ‘বিজেপির পক্ষ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে অশান্তি ছড়াতে চাইছেন কঙ্গনা। বাংলার আইনশৃঙ্খলার ভারসাম্য নষ্ট করতে চাইছেন এই অভিনেত্রী। এনআরসি ও সিএ'র সমর্থনে কথা বলে অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছেন।'

২১৩ বিধায়ক নিয়ে তৃতীয়বারের মতো পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় বসছেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। টুইটে মমতাকে ‘দানব’, ‘ভিলেন’ বলে আক্রমণ করেন কঙ্গনা। বাংলা শিগগিরই কাশ্মিরে পরিণত হবে মন্তব্য করে কঙ্গনা এক টুইটে লিখেন- 'বাংলাদেশি আর রোহিঙ্গারা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সবচেয়ে বড় শক্তি… যা ট্রেন্ড দেখছি তাতে বাংলায় আর হিন্দুরা সংখ্যাগরিষ্ঠ নেই এবং তথ্য অনুযায়ী গোটা ভারতের অন্য এলাকার তুলনায় বাংলার মুসলিমরা সবচেয়ে গরীব ও বঞ্চিত। ভাল আরেকটা কাশ্মির তৈরি হচ্ছে'।'

অপর এক টুইটে পশ্চিমবঙ্গে হিন্দুরা 'অস্তিত্ব সংকটে' বলে মন্তব্য করেন কঙ্গনা। সোমবার রাতে আরেক টুইটে তিনি লিখেন- 'এটা ভয়ঙ্কর... গুন্ডাগিরি মেরে ফেলার জন্য আমাদের সুপার গুন্ডাগিরির প্রয়োজন...। তিনি (মমতা) শেকলহীন দানবের মতো, তাকে দমন করার জন্য দয়া করে ২০০০ সালের প্রথম দিকের বিরাট রূপটা দেখান মোদিজী... ।'

মন্তব্য করুন