তাসনিয়া ফারিণ। মডেল ও অভিনেত্রী। বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি বেশ কিছু একক নাটকের কাজ নিয়ে কাটছে তার ব্যস্ত সময়। অভিনয় নিয়ে ভাবনা ও অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা হয় তার সঙ্গে-

মডেল হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করলেও এখন অভিনয়ে বেশি ব্যস্ত দেখা যাচ্ছে, কারণ কী?

একটি-দুটি করে নাটকে অভিনয় করতে গিয়ে কখন যে কাজের সংখ্যা এত বেড়ে গেছে, বুঝতেই পারিনি। এটা সত্যি যে, অভিনয়ে আসার আমার কোনো ইচ্ছা ছিল না। শুধু আমার মায়ের স্বপ্ন পূরণের জন্য মডেলিংয়ের পাশাপাশি অভিনয় শুরু করেছিলাম। কারণ, আমার মা অভিনেত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন। কিন্তু পরিবার থেকে সাপোর্ট না পাওয়ায় অভিনয়ে আসতে পারেননি। তাই মা চাইতেন, আমি যেন তার অপূর্ণ স্বপ্ন পূরণ করি। আর তা করতে গিয়ে অভিনয়ের প্রতি নিজেরও এক ধরনের ভালো লাগা তৈরি হয়েছে।

এখন কী নিয়ে ব্যস্ত আছেন?

একক নাটকের কাজ নিয়েই এখন ব্যস্ত। এর মধ্যে নির্মাতা মুহম্মদ মোস্তাফা কামাল রাজের 'রোমিও জুলিয়েট' নামে একটি নাটকের শুটিং শেষ করেছি। পাশাপাশি কাজ করেছি সাগর জাহান ও মিজানুর রহমান আরিয়ানের দুটি নাটকে। সামনে শিহাব শাহীন ও রুবেল হাসানের দুটি নাটকে অভিনয় করব।

ধারাবাহিক নাটকে কেন কাজ করছেন না?

ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করতে গেলে দীর্ঘদিন একটি চরিত্রের সঙ্গে মিশে থাকতে হয়। একই চরিত্রে এত সময় নিয়ে অভিনয় করার জন্য যে প্রস্তুতি দরকার, তা আমার মতো তরুণ অভিনেত্রীর জন্য একটু কঠিন। পেশাদার শিল্পী হলে হয়তো এতটা ভাবতাম না। তবে ধারাবাহিকে অভিনয় করব না তা নয়, আরেকটু নিজেকে তৈরি করে নিই, তারপর কাজ শুরু করব।

অভিনয়ের চেয়ে তাহলে কি মডেলিংয়েই গুরুত্ব দেন?

ধারাবাহিক নাটকে কাজ করছি না বলে অভিনয় নিয়ে ভাবি না- এটা ভাবলে ভুল হবে। যখন থেকে অভিনয়ের প্রতি ভালো লাগা তৈরি হয়েছে, তখন থেকেই চেষ্টা করে যাচ্ছি প্রতিটি চরিত্র দর্শকের কাছে বিশ্বাসযোগ্য করে তোলার। এখন পর্যন্ত পরিচালকের নির্দেশ মেনে কাজ করে যাচ্ছি। অভিনয় শুরু করার আগে পরিচালকের সঙ্গে চরিত্র নিয়ে পরামর্শ করি। প্রতিনিয়ত তাদের কাছ থেকে কিছু না কিছু শেখার চেষ্টাও করি। তাই মডেলিংয়ের চেয়ে অভিনয়ও আমার কাছে কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। দুটি কাজই সমানভাবে করে যেতে চাই।

অল্প সময়ে দর্শক পরিচিতি ও জনপ্রিয়তা পাওয়ার বিষয়টি কীভাবে দেখেন?

অল্প সময়ের ক্যারিয়ারে এত মানুষের মনোযোগ কাড়তে পারায় নিজেকে ভাগ্যবান মনে হয়। ভালো অভিনয় করতে পারি, সে দাবি করছি না। যতটুকু কাজ করি. ততটুকুই গুরুত্ব দিয়ে চরিত্র বুঝে অভিনয় করার চেষ্টা করি। এই চেষ্টাই হয়তো নির্মাতাদের ভালো লেগেছে। এ কারণে নির্মাতারা তাদের নাটকে আমাকে নিচ্ছেন। বেছে বেছে কাজ করি বলেই ভিন্ন গল্পের বৈচিত্র্যময় চরিত্রে নিজেকে মেলে ধরতে পারি।

ছোট পর্দার পাশাপাশি কখনও বড় পর্দায় দেখা যাবে কি?

সিনেমা নিয়ে এখনই ভাবছি না। এরই মধ্যে বেশ কিছু সিনেমায় কাজ করার প্রস্তাব পেয়েছি এবং তা ফিরিয়েও দিয়েছি। কারণ, সিনেমার মতো বড় ক্যানভাসে কাজ করার জন্য এখনও প্রস্তুত নই।

মন্তব্য করুন