করোনায় ইউটিউব চ্যানেল নিয়ে সরব তারকারা

প্রকাশ: ০৪ জুন ২০২০     আপডেট: ০৪ জুন ২০২০   

তানিয়া হাক

সময় বদলে যাচ্ছে। ইন্টারনেটের অভাবনীয় বিস্তৃতির কারণে সব এখন হাতের মুঠোয়। অসংখ্য ভিডিও ওয়েবসাইটের মধ্যে 'ইউটিউব' এখন অন্যতম বিনোদন। ভিউয়ের সংখ্যা কিংবা মতামতের বার্তা সবই এখানে বিদ্যমান। এ কারণে এখন অনেকেই নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলের দিকে ঝুঁকছেন। পিছিয়ে নেই আমাদের দেশের তারকা শিল্পীরাও। কাজের আপডেট, শুটিং দৃশ্য, ব্যক্তিগত খুঁটিনাটি সবাই শেয়ার করছেন ভক্তদের সঙ্গে। অনেক তারকা আর্থিকভাবে লাভবানও হচ্ছেন।

২০১৮ সালের শুরুর দিকে চিত্রনায়ক শাকিব খান যুক্ত হন ইউটিউবে। জন্মদিনে তার নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল 'শাকিব খান অফিসিয়াল' অবমুক্ত করেন। শুরু থেকেই চ্যানেলটির দিকে ভক্তদের আগ্রহ তুঙ্গে। তাদের প্রিয় নায়কের কর্মকাণ্ড এই ইউটিউবে দেখছেন তারা। যদিও খুব বেশি ভিডিও এখনও আপলোড হয়নি। শুধু শাকিব খান অভিনীত ছবির ফুটেজ, টিজার কিংবা গান আপলোড করা হয় এ চ্যানেল থেকে। এর পর তিনি খুলেছেন এসকে ফিল্মস নামে একটি ইউটিউব চ্যানেল। এ চ্যানেলের সাবস্ট্ক্রাইবার প্রায় আট লাখ। এখানে বেশ কিছু প্রচারণামূলক ভিডিও রয়েছে। শিগগিরই এ অনলাইন মাধ্যমে নতুন কিছু কনটেন্ট উপস্থাপন করবেন এ নায়ক।

শাকিব খান বলেন, 'আমার ভক্ত-দর্শকদের কথা চিন্তা করেই ইউটিউব চ্যানেল খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। নিজের অভিনীত বিভিন্ন সিনেমার গান, ট্রেলার কিংবা টিজার দর্শকরা বিভিন্ন মাধ্যমে পেয়ে থাকেন। তারা যাতে এক জায়গা থেকে একসঙ্গে আমার সব কাজ পেতে পারেন সেই চিন্তা থেকেই ইউটিউব চ্যানেল খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। পাশাপাশি আমার কাজ নিয়ে তাদের সরাসরি মন্তব্যও এখান থেকে পাচ্ছি। নতুন এক অধ্যায়ের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পেরে ভালোই লাগছে।'

অভিনেতা ও প্রযোজক অনন্ত জলিলও পিছিয়ে নেই এ মাধ্যম থেকে। কয়েক বছর আগেই তিনি নিজস্ব চ্যানেল খুলেছেন। সেখানে তার অভিনয় জীবনের বিভিন্ন ঘটনা এবং ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডের ভিডিও আপলোড করছেন নিয়মিত। অনন্ত জলিল বলেন, 'এখন মানুষ আপডেট থাকতে চান। মুহূর্তের খবর মুহূর্তেই পেতে চান। বিশেষ করে ভক্তরা আমার কাজকর্ম সম্পর্কে প্রায়ই বিভিন্ন মাধ্যমে খোঁজখবর নেন। আমি কী করছি, কোথায় যাচ্ছি, এসব। যেহেতু আমি কম কাজ করি তাই সব সময় সিনেমার খবর তাদের জানাতে পারি না। সিনেমা করলেও সেটা দেখার জন্য মুক্তি পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়। সিনেমার শুটিংয়ের খুঁটিনাটি, যেগুলো নিয়ে দর্শকদের আগ্রহ আছে। এখন ইউটিউবের মধ্য দিয়ে তা দর্শক-ভক্তদের জানাতে পারছি।'

ছোট পর্দার অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরীও দর্শকের কথা বিবেচনায় রেখে চালু করেছেন তার নিজস্ব চ্যানেল। এ চ্যানেল থেকে জনপ্রিয় তারকাদের নিয়ে অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করতেও দেখা গেছে তাকে। অনুষ্ঠানগুলো নিয়ে দর্শকেরও ব্যাপক আগ্রহ। করোনাকালেও বেশ কয়েকটি ভিডিও আপলোড করেছেন এ অভিনেত্রী। অনেক ভিডিওতে ছিল সচেতনতার বার্তা। মেহজাবিন বলেন, 'সারাবিশ্বেই তারকা শিল্পীরা ইউটিউবে সক্রিয়। বিনোদনের অন্যান্য মাধ্যমের অনুষ্ঠান দেখতে দেখতে কিছুটা ঝিমিয়ে পড়ায় ইউটিউবের দিকে অনেকেই ঢুঁ মারেন। আমি দর্শকের এ আগ্রহর বিষয়ে অনেক দিন ধরে চিন্তা করে ইউটিউবে নিজের চ্যানেল চালু করেছি। আমার অনুষ্ঠানগুলোর জন্য দর্শকের কাছ থেকে ভালোই সাড়া পাচ্ছি। ইচ্ছা আছে নতুন কিছু কনটেন্ট আপলোড করার। সময়ের অভাবে অনেক পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারছি না। শিগগিরই দর্শক নতুন কিছু দেখতে পাবেন আমার চ্যানেলটিতে। 'মেহজাবিন চৌধুরী' নামে এই চ্যানেলে এখন সাবস্ট্ক্রাইবার প্রায় ছয় লাখ।

গত বছর ডিসেম্বরের শেষদিকে চঞ্চল চৌধুরী তার অভিনীত মুক্তিযুদ্ধের নাটক 'ফিরে পাওয়া ঠিকানা'র মাধ্যমে নিজের ইউটিউব চ্যানেলের যাত্রা শুরু করেন। চঞ্চল চৌধুরী অফিসিয়াল নামের এই ইউটিউব চ্যানেলটি ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে নয়, বরং ভালো কিছু উপহার দেওয়ার জন্য ব্যবহূত হবে বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেন, মানুষ এখন ইউটিউবে সব কিছু দেখে। মাঝেমধ্যে অনেক ভালো কিছু চ্যানেলে প্রচার হলেও নানা কারণে আমাদের দৃষ্টি এড়িয়ে যায়। দর্শকের কথা মাথায় রেখেই ভালো কিছু কাজ দিয়ে আমার চ্যানেলটিকে সমৃদ্ধ করতে চাই।' শুধু এককভাবে নয়, যৌথভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলেছেন অভিনেত্রী সাফা কবির ও মুমতাহিনা টয়া। 'হলোস্টার' নামের এই চ্যানেলে প্রায় দুই লাখ সাবস্ট্ক্রাইবার রয়েছেন।

টয়া বললেন, 'হলোস্টার' চ্যানেলটির স্বপ্ন অনেক। ধীরে ধীরে তা বাস্তবায়ন করব। বেশ সাড়া পাচ্ছি আমরা। বিগত দিনে চ্যানেলটি সচল রাখতে অনেকে সহযোগিতা করেছেন। আশা করছি, আগামী দিনেও সবার সহযোগিগতা পাব। ' ২০১৬ সালে ইউটিউব চ্যানেল খোলেন সংগীতশিল্পী দিলশাদ নাহার কনা। নিজের গাওয়া 'রেশমি চুড়ি' গানটির ভিডিও আপলোড করার মাধ্যমে চ্যানেলটির যাত্রা শুরু। এর পর নিজের অনেক গানই আপলোড করেছেন চ্যানেলটিতে।

সর্বশেষ এই লকডাউনের সময়টাকে কাজে লাগিয়ে অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিম নিজের নামে একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলেছেন। যেহেতু নিজের নামের ইউটিউব চ্যানেল, তাই তার অভিনীত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র 'কানেকশন' দিয়েই এর শুভ সূচনা করেন। এ ছাড়াও সংগীতশিল্পী ইমরান মাহমুদুল, হৃদয় খান, কনা, অভিনয়শিল্পী স্পর্শিয়াসহ অনেক তারকারই রয়েছে ইউটিউব চ্যানেল। আরও কয়েকজন তারকা ইউটিউব চ্যানেল খোলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে। া