আজকের শিল্পী পূর্ণিমা

কাজের মান নিয়ে কোনো সমঝোতা করি না: পূর্ণিমা

প্রকাশ: ১৯ মার্চ ২০২০     আপডেট: ১৯ মার্চ ২০২০   

বিনোদন প্রতিবেদক

পূর্ণিমা ছবি- হিমেল

পূর্ণিমা ছবি- হিমেল

পূর্ণিমা। তারকা অভিনেত্রী, মডেল ও উপস্থাপক। সম্প্রতি একটি ইলেকট্রনিক্স পণ্যের বিজ্ঞাপনের মডেল হয়ে দর্শক প্রশংসা কুড়িয়েছেন তিনি। এ বিজ্ঞাপন ও অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা হয় তার সঙ্গে-

ছবির কাজ বাদ দিয়ে হঠাৎ মডেলিং নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়লেন, কারণ কী?

ছবির কাজ বাদ দিয়ে বিজ্ঞাপনের মডেল হয়েছি, তা কিন্তু নয়। একটানা কাজের শিডিউল না থাকায় 'গাঙচিল' ও 'জ্যাম' ছবি দুটির কাজ থেমে থেমে হচ্ছে। করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্কের কারণেই 'গাঙচিল' ছবির এ মাসের শুটিং বাতিল করা হয়েছে। তাই আমি সুযোগ পেলাম বিজ্ঞাপনে কাজ করার। তবে পরপর তিনটি বিজ্ঞাপনের কাজ হাতে আসবে- এটা ভাবিনি।

রেফ্রিজারেটরের বিজ্ঞাপনের মতো বাকি দুটি বিজ্ঞাপনেও কি দর্শক পূর্ণিমাকে নতুনরূপে দেখতে পাবেন?

আশা করা যায়, নুডলস ও ডিশওয়াশের নতুন যে দুটি বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছি, তা দর্শকের ভালো লাগবে। মেসবাউর রহমান সুমনের বানানো রেফ্রিজারেটরের বিজ্ঞাপনের সঙ্গে যদিও নির্মাতা নাসিফ রেজা ও সৌনক মিত্রের অন্য দুটি বিজ্ঞাপনের গল্পের কোনো মিল নেই। তিনটি বিজ্ঞাপনই আলাদা ধরনের। দর্শক তিনটি বিজ্ঞাপনে আমাকে আলাদারূপে দেখতে পাবেন।

ছবির কাজ থেমে থাকায় বিজ্ঞাপনে কাজ করছেন। নাটকেও কি দেখা যাবে?

এটা আগেভাগেই বলতে পারছি না। এর আগে যখন হাতে কিছুটা সময় ছিল, তখন সাগর জাহানের 'ভালোবাসাবাসি' নাটকে অভিনয় করেছিলাম। আমার আগের নাটক, টেলিছবিগুলো থেকে এর গল্প কিছুটা আলাদা মনে হয়েছিল, এছাড়া হাতে সময়-সুযোগও ছিল তাই অভিনয় করেছিলাম। সাগর জাহান তার নাটক, টেলিছবির গল্প যেভাবে দর্শকের কাছে বিশ্বাসযোগ্য করে তোলেন- সেটি ভীষণ ভালো লাগে। তাই আবারও স্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় নিয়ে খুব একটা ভাবিনি। জানতাম নির্মাতা যেভাবে তার গল্প পর্দায় তুলে ধরেন, তাতে দর্শকের কাছে এই চরিত্রও নতুন কিছু পাবে। আমার এ ধারণা ভুল প্রমাণিত হয়নি। যে জন্য এমন গল্প, চরিত্র ও নির্মাতাদের সঙ্গে কাজের সুযোগ পেলে নাটক, টেলিছবিতেও অভিনয় করব।

নাটক, টেলিছবির মতো চলচ্চিত্রের কাজেও আজকাল বাছবিচার একটু বেশি করছেন মনে হয়?

ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে চাইলেও সবকিছুর নিজের মনের মতো পাইনি। কিন্তু এখন সুযোগ পেলে কেন ভালো কাজটি করতে চাইব না? হোক না আমার কাজের সংখ্যা অনেকের চেয়ে কম, তাতে কী যায়-আসে। আমার ছবি দেখে দর্শকের যদি মনে হয়, তারা এমন কিছুর প্রত্যাশায় ছিলেন- তাহলেই তো কাজ সার্থক হয়ে উঠবে। এটা সবাই মানবেন, দশটি সাধারণ কাজের চেয়ে একটি ভালো কাজ দিয়েই দর্শকের হৃদয় জয় করা যায়। এ জন্যই এখন কাজের মান নিয়ে সমঝোতা করি না। 'গাঙচিল' ও 'জ্যাম' ছবিতে অভিনয় করার আগে তাই গল্প, চরিত্র, নির্মাতার কাজের ধরন নিয়ে আলাদা করে ভেবেছি। এখন অভিনয় করতে গিয়ে মনে হচ্ছে, এমন কাজই আমি করতে চেয়েছিলাম।

আবার কবে উপস্থাপক পূর্ণিমার দেখা মিলবে?

উপস্থাপনা আমার নিয়মিত কাজের মধ্যে পড়ে না। তারপরও এই কাজটি ভালো লাগে। তাই যে কোনো সময় আবার উপস্থাপনায় দেখা যেতে পারে।