ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে মাদ্রাসা থেকে ফেরার পথে বাঁশের সাঁকো পার হওয়ার সময় পা পিছলে পড়ে ও তাকে বাঁচাতে গিয়ে আরেক শিশুসজহ দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সম্পর্কে তারা দুইজন আপন ভাইবোন। বৃহস্পতিবার জুলাই সকাল নয়টায় দিকে উপজেলার গোয়ালনগর ইউনিয়নের মাছমা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত দুই শিক্ষার্থী হলো- জিহাদ মিয়া (১১) ও তাজিয়া বেগম (৭)। এদের মধ্যে তাজিয়া বেগম মাছমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী এবং জিহাদ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার একটি হাফিজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র। তারা গোয়ালনগর ইউনিয়নের মাছমা গ্রামের মো. মুকুল মিয়ার সন্তান। নাসিরনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিবুল্লাহ সরকার সমকালকে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

নিহতদের পরিবারের সদস্যরা জানান, সকাল সাতটার দিকে মাছমা গ্রামের একটি স্থানীয় মসজিদে আরবি পড়তে যায় জিহাদ ও তাজিয়া। সাড়ে আটটার দিকে মাদ্রাসা ছুটি হয়। ছুটির পর বাড়িতে ফেরার সময় একটি বাঁশের সাঁকোতে পার হতে গিয়ে তাজিয়া বেগম পা পিছলে পানিতে পড়ে যায়। ছোট বোনকে বাঁচাতে গিয়ে বড়ভাই জিহাদও পানিতে ঝাঁপ দেয় বোনকে উদ্ধার করতে। কিন্তু পানির তীব্র স্রোতের কারণে দুজনই তলিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পর স্থানীয়রা উদ্ধার করে দুজনকে নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

নাসিরনগর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিবুল্লাহ সরকার সমকালকে বলেন, ‘দুই ভাইবোনের পানিতে মৃত্যুর ঘটনা শুনে হাসপাতালে গেছি। সেখানে গিয়ে তাদের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

নাসিরনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. মোনাব্বর হোসেন বলেন, এখন বর্ষাকাল। চারদিকে পানি। তাই যে সব শিশুরা সাঁতার জানে না, তাদের বাড়ি থেকে বের হওয়া এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠাতে সর্তক হতে হবে।