উত্তর জনপদকে উচ্চশিক্ষায় এগিয়ে নিতে প্রতিষ্ঠিত দেশের অন্যতম প্রাচীন ও শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ বুধবার। ১৯৫৩ সালের ৬ জুলাই প্রতিষ্ঠিত হয়ে ইতিহাস-ঐতিহ্য ও গৌরবের সঙ্গে ৬৯ বছর শেষ করে ৭০ বছরে পদার্পণ করল বিশ্ববিদ্যালয়টি।

শিক্ষা আন্দোলন, ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান, মহান মুক্তিযুদ্ধ, স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের মতো প্রতিটি ঐতিহাসিক ঘটনায় প্রত্যক্ষভাবে অংশ নিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

দিবসটি উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ প্রাক্তন সব শিক্ষার্থী, গবেষক ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। উপাচার্য এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তিকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তুলে ধরতে সবার সহযোগিতা কামনা করেছেন।

জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পাণ্ডে জানান, অন্যান্য বছর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বর্ণিল সাজসজ্জা থাকলেও সিলেটসহ দেশের অন্যান্য জেলায় বন্যার্তদের কষ্টের কথা বিবেচনায় এবার জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজন বাতিল করেছেন উপাচার্য। তবে বেশ কিছু কর্মসূচি হাতে নিয়েছে প্রশাসন।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনে যা থাকছে :বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসন ভবন চত্বরে আজ সকাল ১০টা ৫ মিনিটে জাতীয় সংগীত পরিবেশন ও পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসটি শুরু হবে। পরে বেলুন, ফেস্টুন ও পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন অতিথিরা।

উদ্বোধন শেষে বৃক্ষরোপণ এবং আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হবে। পরে বেলা ১১টায় শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এ সভায় আলোচক থাকবেন ষাটের দশকের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক গণিতবিদ সুব্রত কুমার মজুমদার এবং বাংলা বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক কবি চৌধুরী জুলফিকার মতিন। এ সময় উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার, উপ-উপাচার্যসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

সাতটি বিভাগে ১৫৬ জন ছাত্র ও ৫ জন ছাত্রী নিয়ে যাত্রা শুরু করা বিশ্ববিদ্যালয়টিতে বর্তমানে ১২টি অনুষদে ৫৯টি বিভাগ এবং ৬টি ইনস্টিটিউটে প্রায় ৩৮ হাজার শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করছেন।