নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে হাজী নুর উদ্দিন আহম্মেদ উচ্চ বিদ্যালয়ে দুই শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছেন শিক্ষক জসিম উদ্দিন। এ ঘটনায় তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্কুল পরিচালনা কমিটি। সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী তানজিলা আক্তার ও নিশী চৌধুরী স্কুলের ভেতরে খেলা করায় শনিবার দুপুরে তাদের অফিস কক্ষে ডেকে নিয়ে লাঠি দিয়ে পেটান ওই শিক্ষক। অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে নেওয়া হয় আইসিউতে। রোববার এই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক জওহর লাল ঘোষ।

তানজিলার মা মিনু বেগম ও নিশীর মা বিউটি আক্তার অভিযোগ করেন, শিক্ষক জসিম উদ্দিন উগ্র প্রকৃতির। তিনি প্রায়ই শিক্ষার্থীদের মারধর করেন। তানজিলা ও নিশীসহ কয়েকজন চমকী (জরি) নিয়ে খেলা করছিল। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে দু'জনকে পেটান জসিম উদ্দিন। তাদের লাথিও দেওয়া হয়। দু'জন অসুস্থ হয়ে পড়লে জসিম উদ্দিন অভিভাবকদের না জানিয়ে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করান। তাদের অবস্থার অবনতি হলে জসিম উদ্দিন অভিভাবকদের খবর দেন।

অন্য অভিভাবকরা অভিযোগ করেন, জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থী ধর্ষণের অভিযোগ আছে। এ ছাড়া তাঁর বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা আছে। তিনি বেশ কয়েকবার জেল খেটেছেন। কর্মকর্তাদের তোষামোদ করে চলার কারণে জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয় না। এ ব্যাপারে জানতে জসিম উদ্দিনের ফোনে কল করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। রূপগঞ্জ থানার ওসি এএফএম সায়েদ বলেন, এ ঘটনায় কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি।