আবারও ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর 'আবদার' জানিয়েছেন চট্টগ্রামের বাস মালিকরা। চট্টগ্রাম সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের পক্ষে সভাপতি খোরশেদ আলম ও মহাসচিব মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু বুধবার এক বিবৃতিতে এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে মালিকরা শুধু গণপরিবহনের ওপর নিয়ন্ত্রণ রেখে অন্যান্য ভাড়ায় চালিত গাড়িকে স্বাস্থ্যবিধির নিয়ন্ত্রণের বাইরে রাখলে মহামারি নিয়ন্ত্রণে সরকারের উদ্যোগ সফল হবে না বলে অভিমত দেন।

সভাপতি খোরশেদ আলম ও মহাসচিব মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু বলেন, সরকার ১৩ জানুয়ারি থেকে সারাদেশে ১১টি শর্তসাপেক্ষে জরুরি বিধিনিষেধ জারি করেছে। নেতারা সরকারের সব ধরনের বিধিনিষেধের প্রতি আন্তরিক। কিছুদিন আগে জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধির কারণে ভাড়া বাড়া-সংক্রান্ত বিষয়ে সৃষ্ট অচলাবস্থা নিরসন হয় এবং স্বাভাবিক হয় যান চলাচল। এর আগে লকডাউনের সময় প্রতি সিটে একজন করে যাত্রী বহন এবং ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়িয়ে ধার্য করা হয়। এতে মালিকরা ক্ষতিগ্রস্ত হলেও দেশের স্বার্থে তারা তা মেনে নেন। এবারও সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন সচল রাখতে হলে আগের সিদ্ধান্ত কার্যকর করে সিট-প্রতি একজন ও ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্তে আসতে হবে। পাশাপাশি করোনা থেকে যাত্রীদের সুরক্ষা দেওয়ার স্বার্থে সিএনজি অটোরিকশা, টেম্পো, প্রাইভেটকার, ভাড়ায় চালিত মাইক্রোবাস স্বাস্থ্যবিধির আওতায় আনতে হবে।