গ্রাহকের প্রয়োজন বিবেচনায় চলতি মূলধন ঋণসীমা বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে বিদ্যমান সীমা বাড়াতে বলা হয়েছে। বিশ্ববাজারে পণ্য মূল্য বৃদ্ধির ফলে ব্যবসায়ীদের কেউ যেন সমস্যায় না পড়ে সে জন্য এমন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বুধবার এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা সব ব্যাংকে পাঠানো হয়।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটে বাজারে কাঁচামালসহ বিভিন্ন উপকরণের মূল্য এবং পরিবহন ব্যয় বৃদ্ধির কারণে উৎপাদন ব্যয় বাড়ছে। ফলে ঋণগ্রহীতাদের অনুক্থলে ইতোমধ্যে মঞ্জুরিকৃত চলতি মূলধন ঋণ সীমার সর্বোচ্চ ব্যবহার সত্ত্বেও চাহিদা মোতাবেক প্রয়োজনীয় কাঁচামালের মূল্য পরিশোধসহ উৎপাদন কার্যক্রম সম্পন্ন করা সম্ভব হচ্ছে না। এতে করে উৎপাদন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। আমদানি-রপ্তানিসহ চলমান অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের গতিশীলতা ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

উৎপাদন কার্যক্রম চলমান রাখা এবং আমদানি-রপ্তানিসহ দেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক কর্মকান্ডের গতিশীলতা বজায় রাখার স্বার্থে ইতোমধ্যে মঞ্জুরিকৃত চলতি মূলধন ঋণ সীমা অন্তবর্তীকালীন বাড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হলো। ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে ঋণ ঝুঁকি এবং গ্রাহকের আর্থিক সক্ষমতা যাচাই করে বাড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হলো।