পুরান ঢাকার ওয়ারীর হেয়ার স্ট্রিটে রাস্তার পাশ থেকে উদ্ধার হওয়া সেই নবজাতককে বাঁচানো যায়নি। শনিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এর আগে শুক্রবার রাতে হেয়ার স্ট্রিটের লোকজন এক দিন বয়সী ওই কন্যাশিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করে।

ওয়ারী থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম জানান, ওই নবজাতকের পরিচয় মেলেনি। তার মাথা ও কোমরে আঘাতের চিহ্ন ছিল। তবে হাসপাতালের নবজাতক ওয়ার্ডের চিকিৎসকরা তাকে বাঁচাতে সব ধরনের চেষ্টা করেছেন। সব চেষ্টাই ব্যর্থ করে গতকাল সকাল ৮টার দিকে তার মৃত্যু হয়। সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার রাতে হেয়ার স্ট্রিটের বাসিন্দা অপূর্ব রবিদাস ও তার স্ত্রী ঝিনুক রবিদাস নবজাতককে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। শনিবার অপূর্ব রবিদাস সমকালকে বলেন, শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টা থেকে ১২টার দিকে হেয়ার স্ট্রিটে নাভানা টাওয়ারের পাশে লোকজনের ভিড় দেখে তারা সেখানে যান। দেখতে পান আনুমানিক এক দিন বয়সী কন্যাশিশু পড়ে আছে। তখনও বেঁচে আছে দেখে শিশুটিকে উদ্ধার করে মানবিক কারণে তিনি স্ত্রীকে সঙ্গে করে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যান। নবজাতক ওয়ার্ডে ভর্তি করে সব ধরনের সহায়তাও করেন।

ওয়ারী থানার ওসি কবির হোসেন জানান, হয়তো মারা গেছে ভেবে নবজাতককে কেউ রাতের আঁধারে রাস্তার পাশে ফেলে গিয়েছিল। কিন্তু ঘটনাস্থলে সিসি ক্যামেরা না থাকায় তা বোঝা যাচ্ছে না। তবে আশপাশের রাস্তা ধরে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ বিশ্নেষণ করে শনাক্তের চেষ্টা চলছে।