করোনা মহামারির পর বিশ্বে যখন কিছুটা স্থিতিশীলতা এসেছে, তখনই ছাত্রদের মধ্যে নতুন উদ্যম ফিরিয়ে আনতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছায়া জাতিসংঘ সংস্থা (জেইউ মুনা) আয়োজন করে জাহাঙ্গীরনগর ছায়া জাতিসংঘ-২০২২ (জেমান-২০২২)। গত ২-৪ জুন এই ছায়া জাতিসংঘ অনুষ্ঠিত হয়েছে সংস্কৃতির প্রাণকেন্দ্র জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে। এ প্রতিযোগিতায় দেশ-বিদেশের মোট ২৫টি বিশ্ববিদ্যালয় এবং স্কুল-কলেজ থেকে ২২০ প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে। তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতার উদ্দেশ্য ছিল- শিক্ষার্থীদের মধ্যে জাতিসংঘ এবং জাতীয় সংসদ সম্পর্কে বিস্তর ধারণা দেওয়া। একই সঙ্গে বিশ্বে ঘটিত সমস্যাগুলো সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি ও এর সমাধান তরুণদের মধ্য থেকে বের করে আনা। এ প্রতিযোগিতায় সাতটি কমিটি ছিল। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ ও স্কুলের শিক্ষার্থীরা সভায় আলোচ্য বিষয়সূচি অনুসারে বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধি হিসেবে অংশগ্রহণ করে এবং বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে তারা বিজয়ী হন। সাতটি কমিটির মধ্যে সবচেয়ে বেশি পুরস্কার পান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছায়া জাতিসংঘ সংস্থার (ডিইউ মুনা) শিক্ষার্থীরা। এ প্রতিযোগিতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছায়া জাতিসংঘ সংস্থা (ডিইউ মুনা) 'বেস্ট ডেলিগেশন অ্যাওয়ার্ড' এবং মর্নিং গ্লোরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ 'আউটস্ট্যান্ডিং ডেলিগেশন অ্যাওয়ার্ড' পায়।
প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে একজন জানান, 'করোনার পর এমন একটা মানসম্পন্ন কনফারেন্স পেয়ে আমরা খুশি। আমরা অনেক কিছু শিখতে পেরেছি। আমি ছায়া জাতীয় সংসদে ময়মনসিংহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য ছিলাম, জাতীয় সংসদে যে এত নিয়মকানুন থাকে সে সম্পর্কে আমার ধারণা কম ছিল, এ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে সেসব সম্পর্কে জানতে পেরেছি, ব্যবস্থাপনা খুবই ভালো ছিল। আমরা ২০২৩ সালে আবারও এমন একটি ভালো প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে চাই।'
আয়োজক ক্লাবের প্রেসিডেন্ট বলেন, 'সংগঠনের সদস্য, প্রশাসনসহ সবার সহযোগিতায় করোনা-পরবর্তী একটা সফল কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হওয়ায় আমি উচ্ছ্বসিত। দীর্ঘ ৩ বছর পর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়েছে যা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য এটি ইতিবাচক বিষয়। যাঁরা অংশগ্রহণ করেছেন প্রতিযোগিতায় তাঁদের ধন্যবাদ জানাই। আমার অনুজদের হাত ধরে ক্লাব এগিয়ে যাক এই কামনা করি।'
বিজয়ী দলের কাছে অনুভূতি জানতে চাইলে তাঁরা জানান, 'জেইউ মুনা বেশ কয়েক বছর ধরেই মানসম্পন্ন কনফারেন্স করে আসছে, এরই ধারাবাহিকতায় জেমান-২০২২ অনুষ্ঠিত হয়েছে, এবার আমাদের ক্লাব বেস্ট ডেলিগেশন অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে। আমরা অবশ্যই আনন্দিত এবং সাফল্যে উচ্ছ্বসিত, আমাদের ক্লাবের এই সফলতা ধারাবাহিকভাবে ধরে রাখতে চাই। জেইউ মুনার মঙ্গল কামনা করি, যাঁরা এই সফল প্রতিযোগিতা আয়োজনে নিরলস পরিশ্রম করেছেন তাঁদের ধন্যবাদ। আগামীতে আশা করব এই ধরনের আয়োজন যেন আরও বেশি পরিমাণে হয়।'