একুশে বইমেলা

বাণী অর্চনা উৎসবের ঢেউ প্রাঙ্গণে

প্রকাশ: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯       প্রিন্ট সংস্করণ     

সমকাল প্রতিবেদক

বাণী অর্চনা হিসেবে পালিত সরস্বতী পূজা উৎসবের রঙ ছুঁয়ে গিয়েছিল গতকাল রোববার অমর একুশে গ্রন্থমেলার প্রাঙ্গণজুড়ে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলসহ বিভিন্ন হল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিদ্যার দেবীর আরাধনা সেরে শিক্ষার্থীরা পথ ধরেন গ্রন্থমেলার। রাতে মেলার দুয়ার বন্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত বইপ্রেমীদের ঢল ছিল অব্যাহত। গতকাল মেলার দ্বার খোলে বিকেল ৩টায়। বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা নামতে মেলার বিশাল প্রাঙ্গণ পরিপূর্ণ হয়ে ওঠে বইপ্রেমীদের পদচারণায়।

গতকাল বিকেলে তাম্রলিপির প্যাভিলিয়নের সামনে কথা হচ্ছিল রাজউক উত্তরা স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্র সিদ্ধার্থ চক্রবর্তীর সঙ্গে। সে জানায়, সরস্বতী পূজা উপলক্ষে বাবা-মায়ের সঙ্গে জগন্নাথ হলে এসেছিল। সেখান থেকে সরাসরি মেলা প্রাঙ্গণে চলে এসেছে। প্রিয় লেখক মুহম্মদ জাফর ইকবালের 'নিয়ান' বইটি কিনেছে। আরও কয়েকটি বই কেনার ইচ্ছা রয়েছে তার।

জগন্নাথ হল থেকে সরাসরি মেলায় এসেছিলেন তরুণ দম্পতি অনির্বাণ সরকার ও তৃষা সরকার। অনির্বাণের পছন্দ কবিতা, তৃষার পছন্দ উপন্যাস। কার পছন্দের বই আগে কেনা হবে সেটি নিয়েই মিষ্টি খুনসুটি চলছিল তাদের মধ্যে। তৃষা বললেন, নতুন লেখকদের বই কেনার প্রতিই তার এখন বেশি ঝোঁক। গতকাল যেমন তিনি কিনেছেন স্বকৃত নোমানের 'মায়ামুকুট', মাজহার সরকারের 'নেমকহারাম' ও সাদাত হোসাইনের 'নির্বাসন'। অনির্বাণ বললেন, কবিতার বইয়ের সংখ্যা বেশি; কিন্তু মানসম্পন্ন কবিতার সংখ্যা অনেক কম। সেজন্য পুরনো কবিতার বইয়ের ওপরেই তার ভরসা। তিনি গতকাল জীবনানন্দ শ্রেষ্ঠ কবিতাসমগ্র কেনার ইচ্ছা প্রকাশ করেন।

উৎসবের রঙে রঙিন মেলা প্রাঙ্গণে ভিড়ের সঙ্গে বেচাকেনাও নেহাত খারাপ হয়নি। অন্বেষা প্রকাশনের স্বত্বাধিকারী মো. শাহাদাৎ হোসেন বলেন, সরস্বতী পূজার প্রভাব পড়েছে মেলায়। প্রচুর মানুষ আসছেন। তাদের অনেকেই প্রিয় বই সংগ্রহ করছেন।

লেখক বলছি ... মঞ্চ : মেলা প্রাঙ্গণের উৎসবের রঙ ছুঁয়ে যায় মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশের 'লেখক বলছি ...' মঞ্চেও। সেখানে গতকাল কবি অসীম সাহা 'নির্বাচিত কবিতা', কবি রেজাউদ্দীন স্টালিন 'কবিতা সংগ্রহ', শিশুসাহিত্যিক মীম নোশিন নাওয়াল খান 'টুপিটুন', কথাসাহিত্যিক মাজহার সরকার 'নেমকহারাম' এবং কথাসাহিত্যিক পারভেজ হোসেন 'বাংলাদেশের গল্প' নিয়ে পাঠকের মুখোমুখি হন।

নতুন বই : বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগ থেকে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, গতকাল মেলার দশম দিনে নতুন ৯০টি বই প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে গল্প ১৪, উপন্যাস ১৪, প্রবন্ধ ২, কবিতা ৩৫, গবেষণা ৩, শিশুসাহিত্য ২, জীবনী ১, মুক্তিযুদ্ধ ১, বিজ্ঞান ১, ইতিহাস ১, রাজনীতি ২, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী ২ এবং অন্যান্য বিষয়ের ওপর আরও ১২টি নতুন বই এসেছে।

নতুন বইয়ের মধ্যে রয়েছে- ইমদাদুল হক মিলনের 'আমার প্রেমের উপন্যাস' (কথাপ্রকাশ), আনিসুল হকের 'নিষিদ্ধ কৌতুক' (পার্ল পাবলিকেশন্স), নেহাল করিমের 'বাঙালি জাতীয়তাবাদ ও বাংলাদেশের অভ্যুদয়' (হাওলাদার প্রকাশনী), বুলবুল চৌধুরীর 'ছোটগল্প' (কালি কলম প্রকাশন), শবনম মুশতারীর 'তালিম হোসেন জন্মশতবর্ষ ২০১৮' (জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র), রাশেদ রউফের 'বাবারা কি মায়ের মত হয়' (প্রত্যয়ন), দীপু মাহবুবের 'ফোরফিফটিটুবি' ও আমীরুল ইসলামের 'বাংলার গল্প বাঙালির গল্প' (কলি প্রকাশনী), অরুণ কুমার বিশ্বাসের 'ট্যাঙ্কিতে কালো ভূত' (অর্জন প্রকাশন), নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহর 'পাবলিক ম্যানেজমেন্ট ফর লোকাল গভর্নমেন্ট ইন বাংলাদেশ' (আহমদ পাবলিশিং হাউস), এন এস এম মঈনুল হাসান সজলের 'তৃতীয় চোখে কাব্য' (পূর্বা প্রকাশনী), রাসেল আহমেদের 'বাংলার পথিকৃৎ নারী' ও 'বঙ্গবন্ধুর অমর বাণী' (আদিত্য অনীক প্রকাশনী), বিপাশা চক্রবর্তীর 'বিখ্যাত নারীদের গল্পগাথা' (আলোঘর), আবুল মাল আবদুল মুহিতের 'নির্বাচন ও প্রশাসন' (সময়), রকিব হাসানের 'কিশোর মুসা রবিন- পিরামিড রহস্য' (কথা প্রকাশ), গোলাম কুদ্দুসের 'ভাষা আন্দোলন সহজ পাঠ' (অন্যপ্রকাশ), ভাগ্যধন বড়ূয়ার 'লাভ লেইন' (খড়িমাটি), মোস্তফা সেলিমের 'সিলেটি নাগরীলিপি সাহিত্যের ইতিবৃত্ত' (উৎস), মোস্তফা কামালের 'অগ্নিমানুষ' (পার্ল) ও আব্দুল্লাহ শুভ্রর 'কালো জোছনায় লাল তারা' (অন্বেষা)।

মুস্তাফিজ শফির 'কবির বিষণ্ণ বান্ধবীরা' দু'দিন আগেই মেলায় এনেছে চৈতন্য। গতকাল কবিও ছিলেন মেলায়। অটোগ্রাফ দিয়েছেন পাঠকদের। প্রকাশক রাজীব চৌধুরী জানালেন, বইটির বিক্রি বেশ ভালো।

মূলমঞ্চের আয়োজন :গতকাল গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় 'কথাশিল্পী অমিয়ভূষণ মজুমদার : জন্মশতবর্ষ শ্রদ্ধাঞ্জলি' শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মহীবুল আজিজ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন হোসেনউদ্দীন হোসেন, মাহবুব সাদিক ও হরিশংকর জলদাস। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সেলিনা হোসেন।

সন্ধ্যায় কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ করেন মুহম্মদ নূরুল হুদা এবং সঞ্জীব পুরোহিত। আবৃত্তি করেন মীর মাসরুর জামান রনি এবং লাবণ্য শিল্পী। সঙ্গীত পরিবেশন করেন শিল্পী আলম দেওয়ান, রণজিত দাস বাউল, মমতা দাসী বাউল, লতিফ শাহ ও মো. আনোয়ার হোসেন।

আজকের আয়োজন :আজ সোমবার মেলা চলবে বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। বিকেলে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে 'নৃত্যাচার্য বুলবুল চৌধুরী : জন্মশতবর্ষ শ্রদ্ধাঞ্জলি' শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন অনুপম হায়াৎ। আলোচনায় অংশ নেবেন আমানুল হক, লুভা নাহিদ চৌধুরী ও শিবলী মোহাম্মদ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন কামাল লোহানী। সন্ধ্যায় রয়েছে কবিকণ্ঠে কবিতাপাঠ, কবিতা-আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

বিষয় : একুশে বইমেলা