ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের পাশে হাইকোর্ট মোড়, দোয়েল চত্বরসহ আশপাশের এলাকায় বৃহস্পতিবার দুপুরে ছাত্রদল ও ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে একজন সাংবাদিকসহ মোট ৪৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

আহত সাংবাদিক আবির আহমেদ অনলাইন পোর্টাল দ্য ডেইলি ক্যাম্পাসের নিজস্ব প্রতিবেদক। অন্যদিকে, ছাত্রদলের অন্তত ৪৪ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে সংগঠনটির পক্ষ থেকে একটি তালিকা দেওয়া হয়। 

তাদের মধ্যে ছাত্রদল নেতা শাহীনুর রহমান শাহীন, সাহবুদ্দিন আহমেদ, আবদুল কাইয়ুম, নাহিদ চৌধুরী, রাজু হাসান রাজন, আরিফুল ইসলাম, শাকির আহমেদ এবং তানভীর আজাদী গুরুতর আহত হয়ে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। 

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ ছাত্ররাই ছাত্রদলকে প্রতিহত করেছে। ছাত্রদল তার পুরনো ইতিহাসের মতো ফের ক্যাম্পাসকে উত্তপ্ত করতে চাইছে। যেভাবে তারা অতীতে ক্যাম্পাসে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়েছে। এখনও তারা সেটাই করছে। তবে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসকে শান্তিপূর্ণ রাখতে রাস্তায় নেমে এসেছে। তারা তাদের প্রতিহত করেছে।

তিনি বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেছি আমরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অতীতের মত তাদের সন্ত্রাসী কার্যক্রম, খুন ও হত্যা হতে দিতে পারি না আমরা। বিগত বছরগুলোতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন মেধাবীর প্রাণ ঝরেনি, কেন না সন্ত্রাসীদের প্রশ্রয় দেওয়া হয়নি। আমরা চাই না এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অতীতের মত সন্ত্রাসীদের হাতে মেধাবী শিক্ষার্থীর মৃত্যু হোক। সাধারণ শিক্ষার্থীরাও চায় না। আর এ কারণেই এই প্রতিরোধ।

এরআগে, গত মঙ্গলবার ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনার জের ধরে ছাত্রদলের ডাকা বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘিরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে উত্তেজনা দেখা যায়।  এসময় লাঠি হাতে ক্যাম্পাসে মহড়া দিতে দেখা যায় বিভিন্ন হল শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের।