বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় ২০ জনের মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন সংক্রান্ত ডেথ রেফারেন্স ও মামলার নথি হাইকোর্টের সংশ্নিষ্ট শাখায় নথিভুক্ত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ থেকে ৬ হাজার ৬২৭ পৃষ্ঠার ডেথ রেফারেন্স ও মামলার যাবতীয় নথি হাইকোর্টের ডেথ রেফারেন্স শাখায় পাঠানো হয়। সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র ব্যারিস্টার সাইফুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর রাতে আবরারকে তার কক্ষ থেকে ডেকে নিয়ে যায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। তারা ২০১১ নম্বর কক্ষে নিয়ে গিয়ে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করে। পরে রাত তিনটার দিকে শেরে বাংলা হলের সিঁড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় পরদিন রাজধানীর চকবাজার থানায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। পুলিশ পরে ২১ জনকে গ্রেপ্তার করে। এরপর একই বছরে ১৩ নভেম্বর এ মামলায় ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এরই ধারাবাহিকতায় গত বছরের ৮ ডিসেম্বর চাঞ্চল্যকর এ মামলায় রায় দেন ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান। রায়ে ২০ জনকে মৃত্যুদণ্ড ও ৫ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডদেশ দেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার বিধি অনুযায়ী ২০ আসামির মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন সংক্রান্ত ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে পাঠায় বিচারিক আদালত।