মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, পৃথিবীর ইতিহাসে অনেক হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয়েছে। কিন্তু পচাত্তরের ১৫ আগস্ট শেখ রাসেলসহ বঙ্গবন্ধুর পরিবারকে হত্যার সঙ্গে অন্যান্য হত্যাকাণ্ডের পার্থক্য হলো সব জায়গায় শুধু মূল ব্যক্তিকে হত্যা করেছে, এখানে ব্যতিক্রম হচ্ছে রক্তের ছিঁটেফোঁটাও কিছু রাখেনি খুনীরা। এটি রাজনৈতিক কিংবা পারিবারিক হত্যা ছিল না, এটি ছিল একটি আদর্শকে হত্যা করার প্রচেষ্টা। 

তিনি আরও বলেন, ১০ বছরের শিশু রাসেলের সঙ্গে কারো প্রতিযোগিতা বা প্রতিহিংসা থাকার কথা নয়। কিন্তু খুনিরা মনে করেছিল বঙ্গবন্ধুর রক্ত যেখানে থাকবে তাকে ঘিরেই জাতি ঐক্যবদ্ধ হবে। শহিদ শেখ রাসেলের জীবনদান ছিল আদর্শের জন্য।

সোমবার মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এসব কথা বলেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠপুত্র ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আদরের ছোট ভাই শহিদ শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে আয়োজন করা হয় এই অনুষ্ঠানের। শেখ রাসেলকে নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনের পাশাপাশি অনুষ্ঠানে জন্মদিনের সুদৃশ্য কেক কাটা হয়। 

এ সময় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সচিব খাজা মিয়া, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের মহাপরিচালক মো. জহুরুল ইসলাম রোহেল, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কামরুন নাহার, অতিরিক্ত সচিব রঞ্জিত কুমার দাসসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।