স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে কারুশিল্পী সাইমন ইমরান হায়দার লাল ও সবুজ খাম দিয়ে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা তৈরি করেছেন, যা বিশ্বে সর্ববৃহৎ বলে দাবি করা হয়েছে। বিশাল আকারের এ পতাকাকে গিনেস বুকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

শনিবার গিনেস কর্তৃপক্ষের অনুমোদিত আবেদনের মাধ্যমে ঢাকার ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলের বলরুমে এ পতাকা তৈরি করেন সাইমন ইমরান। ২০ মিটার দৈর্ঘ্য ও ১২ মিটার প্রস্থের এ পতাকা তৈরি করতে পাঁচ ঘণ্টারও বেশি সময় লেগেছে তার।

খাম তথ্য ও যোগাযোগের ক্ষেত্রে আনুষ্ঠানিক-রীতিনীতি বহন করে এলেও এখানে নতুন রেকর্ডের শিরোনাম হতে যাচ্ছে। ‘খাম দিয়ে তৈরি সর্ববৃহৎ পতাকা’ নামে পরিকল্পনাটি বাস্তবায়ন হচ্ছে।

পরিকল্পনাটি বাস্তবায়নে প্রায় ১৬ হাজার খাম ব্যবহার করেছেন তিনি। এসব দিয়েই ২৪০ বর্গমিটার আকারের ওই পতাকা তৈরি করতে সক্ষম হয়েছেন। শনিবার সকাল থেকে শুরু করে বিকেল পর্যন্ত কাজ করে নতুন রেকর্ডের মাইলফলক স্পর্শ করেন সাইমন ইমরান। এর আগে গত কয়েক বছরে সাইমন নিজেই সব খাম বানিয়েছেন।

‘দুর্নিবার বাংলাদেশ’ শিরোনামে পতাকা তৈরির এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান। এছাড়া সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল বিশেষ অতিথি হিসেবে এবং লেখক, ইতিহাসবিদ, শিক্ষাবিদ ড. মুনতাসির মামুন সম্মানিত অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

পতাকাটির স্বীকৃতির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা, নাম লিপিবদ্ধকরণ এবং প্রশংসাপত্র পাওয়ার জন্য সব নথি-প্রমাণ, চিত্রায়ন ও নিরীক্ষা রিপোর্ট ইতোমধ্যে গিনেস কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে।

কারুশিল্পী সাইমন এ কাজটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উৎসর্গ করছেন। সাইমন আরও কয়েকটি প্রকল্প নিয়ে কাজ করছেন, যা বৈশ্বিক অঙ্গনে বাংলাদেশের নাম জাগ্রত করবে বলে জানিয়েছেন তিনি।