জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার করে ইতিহাস বিকৃতির চেষ্টার অভিযোগে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর শাহবাগ থানায় তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাটি দায়ের করেন এক ছাত্রলীগ নেতা। তারেক জিয়া ছাড়াও তার সহযোগিদের আসামি করা হয়েছে, অবশ্য তারা অজ্ঞাতনামা।

মামলার বাদী জাহিদুল ইসলাম ওরফে জাহিদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ হল শাখা ছাত্রলীগের উপত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সম্পাদক।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ইউটিউবে তিনি তারেক রহমানের একটি বক্তব্য শোনেন। বিএনপির ৪১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে লন্ডনে আয়োজিত একটি কর্মী সভায় তারেক রহমান বলেছেন, ‘যারা এই সভায় উপস্থিত আছেন, যারা ক্যামেরা ও প্রযুক্তির মাধ্যমে দেখছেন সকলে মিলে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সিদ্ধান্ত নিতে পারি, আমাদের নেতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদের জাতির পিতা। জিয়াউর রহমান শুধু বাঙালি জাতি না, বাঙালিসহ ৫৫ হাজার ১২৬ বর্গমাইলের মধ্যে যতগুলো জাতি বাস করে, যারা বাংলাদেশি জাতির পরিচয় বহন করে, নিজেদের বাংলাদেশি হিসেবে পরিচয় দেয়, সেই বৃহৎ জনগোষ্ঠীর জাতির পিতা বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদের জাতির পিতা। সকলে মিলে এই প্রস্তাব গ্রহণ করতে পারি? তাহলে আজ থেকে সিদ্ধান্ত হলো- শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদের জাতির পিতা।’

এজাহারে আরও বলা হয়েছে, ‘ওই কর্মী সভায় তারেক রহমান বাংলাদেশে চলমান স্থিতিশীল পরিস্থিতিকে অস্থিতিশীল করার উদ্দেশে এমন মিথ্যা তথ্য সম্বলিত উদ্ভট যুক্তি দিয়েছেন। তিনি জাতির জনককে নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার করে ইতিহাস বিকৃতির চেষ্টা করেছেন।’