বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার মামলায় আরও দু'জন আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। ঢাকার এক নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামানের আদালতে বৃহস্পতিবার সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। তারা হলেন- মামলার রেকর্ডিং কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন ও শেরেবাংলা হলের ক্যান্টিনবয় জাহিদ হোসেন জনি।

রোববার পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য দিন ধার্য করেন আদালত।

এ মামলায় আগামী ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত কর্মদিবসগুলোতে ধারাবাহিকভাবে সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য রয়েছে। এ নিয়ে মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে ৬০ সাক্ষীর মধ্যে চারজনের সাক্ষ্য গ্রহণ সম্পন্ন হলো।

গত ৫ অক্টোবর আবরারের বাবা বরকতউল্লাহর জবানবন্দি গ্রহণের মধ্য দিয়ে এ মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। এর আগে ১৫ সেপ্টেম্বর আসামিদের অব্যাহতির আবেদন নামঞ্জুর করে চার্জশিটভুক্ত ২৫ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে এ মামলার বিচার শুরু হয়।

গত বছরের ৬ অক্টোবর রাতে হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শেরেবাংলা হলে ছাত্রলীগের কিছু উচ্ছৃঙ্খল কর্মীর পিটুনিতে মারা যান বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদ।

এ ঘটনায় পর দিন নিহতের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে চকবাজার থানায় মামলা করেন। পরে নির্যাতনের ভিডিও ফুটেজ ও পুলিশি তদন্তে এ হত্যাকাণ্ডে আরও ৬ জনের সম্পৃক্ততা পাওয়ায় তাদেরও মামলায় আসামি করা হয়। আবরার বুয়েটের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (১৭ ব্যাচ) শিক্ষার্থী ছিলেন।

মন্তব্য করুন