প্রবাসে নারীকর্মী নির্যাতন বন্ধে পদক্ষেপ নিতে হবে: সংসদীয় কমিটি

প্রকাশ: ২৮ নভেম্বর ২০১৯     আপডেট: ২৮ নভেম্বর ২০১৯   

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

প্রবাসে বাংলাদেশি নারীকর্মীদের মধ্যে নির্যাতনের শিকার হন শতকরা এক ভাগেরও কম। গৃহকর্মী নারীরাই বেশি নির্যাতনের শিকার হন।

বুধবার সংসদ ভবনে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

তবে কমিটি বলেছে, সংখ্যা যতই কম হোক নির্যাতন বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। কোনো নারী শ্রমিক নির্যাতনের শিকার হলে পররাষ্ট্র বা প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়কে বাদী হয়ে মামলা করতে হবে। নির্যাতনকারীদের ওপর চাপ অব্যাহত রাখতে হবে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে এ বিষয়ে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যৌথভাবে নির্যাতন বন্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে এ কমিটি।

কমিটির সভাপতি ফারুক খানের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদ, নাহিম রাজ্জাক ও নিজাম উদ্দিন জলিল (জন) অংশ নেন।

বৈঠক শেষে ফারুক খান সাংবাদিকদের বলেন, মধ্যপ্রাচ্যে নারী শ্রমিকদের নির্যাতনের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বর্তমানে ছয় লাখের বেশি নারীকর্মী বিদেশে আছেন। সৌদি আরবেই এ সংখ্যা আড়াই লাখ।

বৈঠক সূত্র জানায়, বৈঠকে সৌদি আরবে গৃহকর্মীদের নির্যাতনে জড়িতদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বা কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয় কি-না তা জানতে চায় সংসদীয় কমিটি। জবাবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, নির্যাতনের অভিযোগে সৌদি আরবে একজন সৌদি নাগরিক কারাগারে আছেন। কিছু ক্ষেত্রে নারীকর্মী পাঠানোর ক্ষেত্রেও অনিয়ম হয়। নিয়ম ভঙ্গ করে ১৪ বছরের কম বয়সী এবং ৬৫ বছরের বেশি বয়সী নারীকেও বিদেশে পাঠানো হয়েছে। এ ক্ষেত্রে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে- এমন প্রশ্নে কমিটিকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়।

কমিটির সভাপতি আরও বলেন, অনেক নারীকর্মী বিদেশে ভালো আছেন। তারা নিজেরা দেশে ফিরে আসার পর আবারও যাচ্ছেন, আত্মীয়স্বজনকেও নিয়ে যাচ্ছেন। তবে নির্যাতনের শিকার নারীর পক্ষে মামলা করা সম্ভব নয়। বিদেশে মিশনের শ্রম উইং থেকে মামলা করার ব্যবস্থা করা যায়। আর দেশে অনিয়মে জড়িত এজেন্সির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।