স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবে যেসব দেশের সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে, তার মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। তবে, সরকার যুগোপযোগী পদক্ষেপ নেওয়ায় বাংলাদেশ সফলতার সঙ্গে সংকট মোকাবিলা করছে।

গত সোমবার লন্ডনে ওয়েস্টমিনস্টার ভবনে স্পিকারের কার্যালয়ে হাউস অব কমন্সের স্পিকার স্যার লিন্ডসে হোয়েলের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে এ কথা বলেন তিনি। খবর বাসসের।

ব্রিটিশ পার্লামেন্টে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সফর উপলক্ষে ওয়েস্টমিনস্টার প্রাঙ্গণে ব্রিটিশ পতাকার পাশাপাশি বাংলাদেশের পতাকাও উত্তোলন করা হয়।
সাক্ষাৎকালে তাঁরা জলবায়ু পরিবর্তন, দারিদ্র্য বিমোচন, নারীর ক্ষমতায়ন, রোহিঙ্গা ইস্যু, বাংলাদেশের ডায়াসপোরা, সামাজিক উন্নয়নসহ কমনওয়েলথভুক্ত পার্লামেন্টগুলোর ভূমিকা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন, দারিদ্র্য বিমোচনসহ সামাজিক উন্নয়ন নিশ্চিতকরণে ওয়েস্টমিনস্টার ও সিপিএভুক্ত পার্লামেন্টগুলো একত্রে কাজ করতে পারে। কমনওয়েলথ দেশগুলোর কনফারেন্স কমনওয়েলথ হেডস অব গভর্নমেন্ট মিটিংয়ে সরকারি পর্যায়ে আলোচনার পাশাপাশি পার্লামেন্টগুলোর সঙ্গে বিদ্যমান ও উদীয়মান ইস্যু নিয়ে মতবিনিময় করা যেতে পারে।

সাক্ষাৎকালে ব্রিটেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সাইদা মুনা তাসনিম ও যুগ্ম সচিব এম এ কামাল বিল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।