বিশ্ব পরিবেশ দিবস-২০২২ উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তারা জানিয়েছেন, দুর্যোগ ও স্বাস্থ্য ঝুঁকি হ্রাসে পরিবেশ সুরক্ষায় নজর দিকে হবে ও দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। ব্যক্তি হিসেবে পরিবেশ ব্যবস্থাপনায় নিজের ভূমিকা নির্ধারণ করতে হবে।

রোববার দূযোর্গ ব্যবস্থাপনা স্টুডিও, ইনস্টিটিউট অব ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ভালনারেবিলিটি স্টাডিজ (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়) এবং জেন্ডার রেস্পন্সিভরেজিলিয়েন্স অ্যান্ড ইন্টারসেকশনালিটি ইন পলিসি অ্যান্ড প্র্যাকটিসের ( সাউথ এশিয়া) যৌথ আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের আরসি মজুমদার অডিটোরিয়ামে  ‘ইকো-ডিআরআর অ্যান্ড ইন্টারসেকশনালিটি’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন। 

ইনস্টিটিউট অব ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ভালনারেবিলিটি স্টাডিজের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ড. দিলারা জাহিদের সভাপতিত্বে সেমিনারে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. মাহবুবা নাসরীন। তিনি বলেন, দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাসে আমাদের পরিবেশের ও বাস্তুসংস্থানের স্বাভাবিকতাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে। 

অনুষ্ঠানে চন্দ্রকলির সমন্বয়ক শাখাওয়াত উল্লাহ বলেন, বড় দেশগুলো কার্বন উৎপাদন করে পৃথিবীকে উষ্ণ করে তুলেছে। ক্ষতির শিকার হচ্ছি আমরা। নিজেরা বনাঞ্চল ধ্বংস, নদী খাল ভরাট, প্লাস্টিক বজ্য  উৎপাদন করায় জলবায়ু ক্ষতিপূরণ দাবির নৈতিক অবস্থান থেকে সরে যাচ্ছি।  

সেমিনারে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইয়ুথনেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিসের প্রধান নির্বাহী সোহানুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সামশাদন ওরীণ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. নাহিদ রেজোয়ানা।

বিশ্ব পরিবেশ দিবসের এ বছরের প্রতিপ্রাদ্য ‘প্রকৃতির ঐকতানে টেকসই জীবন’। স্লোগান নির্ধারণ করা হয়েছে ‘একটাই পৃথিবী’। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি