আমরা স্বপ্নে বিভোর

প্রকাশ: ১৪ জুন ২০১৮     আপডেট: ১৪ জুন ২০১৮       প্রিন্ট সংস্করণ     

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: ফাইল

২০১৪ ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ আমার হৃদয় ভেঙে গিয়েছিল। বিশেষ করে সেমিফাইনালে জার্মানির বিপক্ষে খেলতে না পারাটা আমার জন্য ছিল অনেক কষ্টের। আর জার্মানির কাছে ১-৭ গোলে হার হজম করাটা ছিল কঠিন। আমার পক্ষে তো আরও বেশি। কারণ চোটের জন্য ম্যাচটা খেলতে পারিনি। ওই চোট আমার ক্যারিয়ার শেষকরে দিতে পারত। আর দুই সেন্টিমিটার দূরে লাগলে আজীবন হুইলচেয়ারে কাটাতে হতো। ভাগ্যিস অতটা লাগেনি। তাই তাড়াতাড়ি মাঠে ফিরতে পেরেছি; যা প্রচণ্ড ভালোবাসি, সেই খেলাটা এখনও খেলতে পারছি। সামনেই আরও একটা বিশ্বকাপ। চ্যালেঞ্জের জন্য আমরা তৈরি। চার বছর আগের সময়টা পেছনে ফেলে এসেছি।

এবার দল হিসেবে আমরা ব্যালান্স। তা দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্বেই আপনারা দেখেছেন। বাছাইপর্বে ১৮ ম্যাচ খেলেছি। ভিন্ন দেশ, ভিন্ন পরিবেশে খেলেছি; যা অবশ্যই বড় পরীক্ষা ছিল আমাদের জন্য। তবে আমরা নিজেদের স্টাইলে খেলেছি। সবার আগে রাশিয়া বিশ্বকাপের মূল পর্ব নিশ্চিত করেছি, যা আমাদের সবার কাছেই ছিল বিশেষ। রাশিয়াতেও একই দাপট দেখাতে চাই। আমার বিশ্বাস, ব্রাজিল এবার পারবে। আমরা কঠোর পরিশ্রম করেছি। 

নিজেদের ওপর বিশ্বাস রাখতে হয়, স্বপ্ন দেখতে হয়। আপনারা বলতে পারেন, তোমরা ব্রাজিলিয়ান বলেই স্বপ্ন দেখবে। হ্যাঁ, আমরা স্বপ্ন দেখছি। স্বপ্ন দেখা কোনো নিষিদ্ধ বিষয় নয়। ব্রাজিলিয়ান ফুটবলের পাঁড় ভক্ত হিসেবে বলছি, বিশ্বকাপ জেতাই আমার আজীবনের স্বপ্ন। সেই সুযোগটা এখন আমাকে হাতছানি দিয়ে ডাকছে। ব্যাপারটা একই সঙ্গে মজার এবং অবিশ্বাস্য, তাই না!

চোট নিয়ে আমিও চিন্তায় ছিলাম। বিশ্বকাপের কথা ভেবেই দ্রুত অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। মনে হয়, সবকিছু ঠিক থাকবে। পারফেক্ট হবে আমাদের জন্য। প্রতিনিয়ত আমি ভালো অনুভব করছি। দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছি। অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে তো শুরুর একাদশে ছিলাম। ওই ম্যাচ খেলার পর নিজের ওপর আমার বিশ্বাসটা আরও বেড়ে গেছে। আশা করি, রাশিয়ায় আমি ভালো করতে পারব। 

এই মুহূর্তে বিশ্বের সেরা ৩২ দলের মধ্যে আমরা আছি। বিশ্বকাপে কোনো ম্যাচই সহজ নয়। আমাদের গ্রুপে সুইজারল্যান্ডের ফুটবল ইতিহাস দুর্দান্ত। সার্বিয়া নতুন দেশ হলেও ছাপ রেখেছে। আর কোস্টারিকা? কতটা শক্তিশালী তার প্রমাণ তো রয়েছে চোখের সামনেই। যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বকাপের টিকিট কাটতে পারেনি। ওরা পেরেছে! নকআউট পর্বে উঠতে হলে আমাদের সেরাটাই দিতে হবে। কোনো দলকেই হালকা করে দেখা ঠিক নয়। কারণ যোগ্যতা প্রমাণ করেই সবাই বিশ্বকাপে খেলতে এসেছে। 

ফেভারিট যদি বলতে হয়, তাহলে আমি অবশ্যই ব্রাজিলকেই এগিয়ে রাখব। এই ব্রাজিলের আছে জয়ের ক্ষুধা। গত ১৬ বছর ধরে আমরা বিশ্বকাপ জিততে পারিনি, যা আমাদের ফুটবল সমর্থকদের জন্য হতাশার। আমরাও হতাশ। এবার হয়তো দীর্ঘদিনের অপেক্ষার অবসান ঘটাতে পারব। আমরা যেমন ফেভারিট, বিশ্বকাপ জয়ের মতো সামর্থ্য আছে আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়েরও। 

এই দুটি দল লাতিন আমেরিকার ঐতিহ্য। তবে এবার যেহেতু ইউরোপে বিশ্বকাপ হচ্ছে, তাই ফেভারিটের তালিকায় ইউরোপের দেশগুলোই বেশি থাকবে। জার্মানি তো গতবারের চ্যাম্পিয়ন। তাছাড়া স্পেন, ফ্রান্স, বেলজিয়াম, পর্তুগালও আছে। তাই যে কোনো একটা দলকে ফেভারিট তকমা দেওয়া কঠিন। তারপরও আপনাকে ব্রাজিলকেই এগিয়ে রাখতে হবে। 

আরও পড়ুন

খাগড়াছড়িতে আধাবেলা সড়ক অবরোধ চলছে

খাগড়াছড়িতে আধাবেলা সড়ক অবরোধ চলছে

ইউপিডিএফের নেতাকর্মীসহ ৬ জনকে হত্যার প্রতিবাদে ও হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে সোমবার ...

ফেনীতে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

ফেনীতে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

ফেনীতে র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। সোমবার ভোরে ...

ছাগলনাইয়ায় গরুর ট্রাকের সঙ্গে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে নিহত ৬

ছাগলনাইয়ায় গরুর ট্রাকের সঙ্গে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে নিহত ৬

ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলায় গরুবোঝাই ট্রাকের সঙ্গে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে দুই শিশুসহ ...

রায়ের প্রতীক্ষা শেষ হচ্ছে

রায়ের প্রতীক্ষা শেষ হচ্ছে

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে চালানো ...

মহাসড়কে স্বস্তি ভোগান্তি ট্রেনে

মহাসড়কে স্বস্তি ভোগান্তি ট্রেনে

ঈদযাত্রায় দুর্ভোগের শঙ্কা ছিল। সড়কে নামার পর তা যে একেবারে ...

৫৭ হাজার শূন্যপদে শিগগিরই নিয়োগ

৫৭ হাজার শূন্যপদে শিগগিরই নিয়োগ

সরকারি প্রতিষ্ঠানে অনেক শূন্য পদ রয়েছে। এসব পদ পূরণে পদক্ষেপ ...

সিসিটিভি ফুটেজে মিলেছে হামলাকারীর চেহারা

সিসিটিভি ফুটেজে মিলেছে হামলাকারীর চেহারা

ছোট শহর খাগড়াছড়ি। পুরো শহরের বেশিরভাগ জনাকীর্ণ এলাকা পুলিশের সিসিটিভির ...

দোকানে মাইক্রো ঢুকে প্রাণ গেল শিশুর

দোকানে মাইক্রো ঢুকে প্রাণ গেল শিশুর

মাদারীপুরে একটি মাইক্রোবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে মুদি দোকানের ভিতরে ...