নবীনদের বরণ করে নিল ঢাবির দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা ইনস্টিটিউট

১৭ জানুয়ারি ২০১৮

ঢাবি সংবাদদাতা

উৎসবমুখর পরিবেশে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে (ষষ্ঠ ব্যাচ) ভর্তি হওয়া অনার্স প্রথম বর্ষে শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ভালনারেবিলিটি স্টাডিজ। একই সঙ্গে ইনস্টিটিউটটির প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের বিদায় দেওয়া হয়। গতকাল মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) নবীনবরণ ও বিদায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. মাহবুবা নাসরিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও হা-মীম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ. কে. আজাদ এবং বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক খন্দকার মোকাদ্দেম হোসেন।

অনুষ্ঠানে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ নবীনদের স্বাগত জানিয়ে বলেন, 'তোমরা অত্যন্ত মেধাবী। কেননা যারা ঢাবিতে ভর্তি হয় তারা ভর্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে জয়ী হয়েই এখানে আসে। আর এই প্রতিষ্ঠান সেই প্রতিভা বিকাশের জায়গা। এখানে খেলাধুলা, শিক্ষা, গান-বাজনা সব আছে। এসব বিষয়ে তোমরা সচেষ্ট থাকবে। তোমাদের কাছে আমাদের অনেক চাওয়া আছে। আর সেটা হলো, তোমরা জ্ঞান অর্জন করে ভালো মানুষ হবে। ভালো মানুষ না হলে দেশ ভালো হবে না।' বিদায়ীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, 'তোমরা এই বিভাগের প্রথম ব্যাচের ছাত্র। তোমাদের স্থান সবার ওপরে। তোমাদের কেউ ভুলবে না। আর এই প্রতিষ্ঠানে যারাই আসে তারা একবারই ঢোকে। তাদের বের হয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।' এ সময় তিনি সবাইকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে লালন করার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে এসে মুগ্ধ হন বিশেষ অতিথি ও ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ. কে. আজাদ। তিনি বলেন, এই বিভাগের যে নতুনত্ব, তা শিক্ষার্থীদের অনেক দূরে নিয়ে যাবে। নৈতিক মূল্যবোধের প্রতি সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে শিক্ষার্থীদের তিনি বলেন, 'আমাদের সমাজে নৈতিক চরিত্রের লোক খুবই কম। সব জায়গায় অনৈতিক চরিত্রের লোক বেশি। তাই বেশি বেশি পড়ালেখা করে সবাইকে চরিত্রবান হতে হবে।' ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে চালিয়ে যাওয়ার কাজ করে যাচ্ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। তিনি বলেন, কোনো গরিব শিক্ষার্থী অর্থের অভাবে পড়ালেখায় পিছিয়ে থাকবে না। সেজন্য আমরা গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাসে আড়াই হাজার টাকা করে বৃত্তি দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি।' এ সময় তিনি গরিব নবীন শিক্ষার্থীদের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে যোগাযোগ করার আহ্বান জানান।

বিশিষ্ট এই শিল্পোদ্যোক্তা আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মূল্যবোধের ব্যাপক অবক্ষয় হচ্ছে। গণমাধ্যমে তাদের ব্যাপারে প্রতিনিয়ত নৈতিক স্খলনের খবর প্রকাশিত হচ্ছে। এটা অত্যন্ত লজ্জাজনক। এসব শিক্ষককে সাময়িক অব্যাহতি না দিয়ে স্থায়ী বহিস্কার করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. মাহবুবা নাসরিন সভাপতির বক্তব্যে বলেন, নিজেদের যোগ্যতর হিসেবে গড়ে তুলতে নিয়মিত পড়াশোনা ও শ্রেণিকক্ষে উপস্থিত থাকা ছাড়াও শিক্ষকদের উপদেশ মেনে চলতে হবে।

© সমকাল 2005 - 2017

সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার । প্রকাশক : এ কে আজাদ

১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫, ৮৮৭০১৯৫, ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১, ৮৮৭৭০১৯৬, বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০ । ইমেইল: info@samakal.com